মডিউল-১

মডিউল-১, সেশন-২ঃ ফার্মাসিস্ট কোড অব ইথিকস এবং মডেল মেডিসিন শপে গ্রেড ‘সি’ ফার্মাসিস্টদের (ফার্মেসি টেকনিশিয়ান) দায়িত্ব ও কর্তব্য

মডিউল-২

মডিউল-৪

মডিউল-৪, সেশন-৩ঃ ওষুধ প্রয়োগের পথ

মডিউল-৫

মডিউল-৫, সেশন-২ঃ শুধুমাত্র প্রেসক্রিপশনের মাধ্যমেই ক্রেতার নিকট বিক্রয়যোগ্য ওষুধসমূহ (Prescription Only Medicines)

মডিউল-৭

মডিউল-৭, সেশন-২ঃ এ্যান্টিবায়োটিকের অকার্যকর হওয়া যেভাবে ছড়িয়ে পড়ে

মডিউল-৮

মডিউল-৮, সেশন-২ঃ করোনা সংক্রমণকালীন নিরাপদ ওষুধ ডিসপেন্সিংয়ের ক্ষেত্রে সংক্রমণ প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা অনুসরণ

লেসন-৬ঃ তথ্য সংরক্ষণ ও নথি তৈরি

৬. তথ্য সংরক্ষণ ও নথি তৈরি

  • ডিসপেন্সিংকৃত সকল ওষুধ বিশেষ করে Antibiotic বিক্রয়ের তথ্য ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তর কর্তৃক অনুমোদিত রেজিস্টারে লিখে রাখতে হবে;

  • ডিসপেন্সিংকৃত প্রতিটি প্রেসক্রিপশন/ব্যবস্থাপত্রের জন্য নিম্নলিখিত তথ্য সংরক্ষণ করতে হবে-

(ক) প্রতিটি এন্ট্রির ক্রমিক নম্বর;
(খ) বিক্রির তারিখ;
(গ) প্রেসক্রিপশনকারীর নাম/কোড নম্বর, ঠিকানা;
(ঘ) রোগীর নাম ও অবস্থা (যে কারনে প্রেসক্রিপশন লেখা হয়েছে তা যদি জানা থাকে);
(ঙ) ওষুধের নাম ও সরবরাহকৃত ওষুধের পরিমাণ;

  • Prescription only ও Over-the-Counter (OTC) সকল ওষুধ সরবরাহকারী/উৎপাদক থেকে ক্রয়ের রশিদ ও চালানসমূহ মডেল ফার্মেসীর স্বয়ংক্রিয় (কম্পিউটারভিত্তিক) ব্যবস্থায় সংরক্ষণ করতে হবে। এই রশিদ ও চালানসমূহের কপি ফার্মেসীতে কমপক্ষে ২ বছর সংরক্ষণ করতে হবে;

  • ওষুধ ক্রয়ের তথ্য সংরক্ষণের জন্য একটি রেজিস্টার থাকবে যাতে কমপক্ষে নিম্নোক্ত তথ্যগুলো থাকবে-

    (ক) সরবরাহকারীর নাম;
    (খ) ক্রয়ের তারিখ;
    (গ) ওষুধের নাম ও পরিমাণ;
    (ঘ) উৎপাদনকারীর নাম, ব্যাচ নম্বর ও মেয়াদোত্তীর্ণের তারিখ;

  • মেয়াদোত্তীর্ণ পণ্যের তথ্য অবশ্যই সংরক্ষণ করতে হবে;

  • প্রতিটি মডেল ফার্মেসীতে ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তর, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয় বা অন্যান্য নিয়ন্ত্রণকারী কর্তৃপক্ষ থেকে প্রাপ্ত চিঠিপত্রের (যেমন-ওষুধ প্রত্যাহারের নোটিস) একটি নথি অবশ্যই সংরক্ষণ করতে হবে;

  • মডেল ফার্মেসীতে অবশ্যই সকল পরিদর্শনের নথি সংরক্ষণ করতে হবে;

  • ফার্মাকোভিজিলেন্সের অংশ হিসাবে মডেল ফার্মেসীতে অবশ্যই ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তর কর্তৃক অনুমোদিত ওষুধের বিরুপ প্রতিক্রিয়া ফর্ম (ADR Reporting Form) সংরক্ষণ করতে হবে এবং ওষুধের বিরুপ প্রতিক্রিয়া সম্পর্কে ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তরকে নিয়মিত জানাতে হবে।