মডিউল-১

মডিউল-১, সেশন-২ঃ ফার্মাসিস্ট কোড অব ইথিকস এবং মডেল মেডিসিন শপে গ্রেড ‘সি’ ফার্মাসিস্টদের (ফার্মেসি টেকনিশিয়ান) দায়িত্ব ও কর্তব্য

মডিউল-২

মডিউল-৪

মডিউল-৪, সেশন-৩ঃ ওষুধ প্রয়োগের পথ

মডিউল-৫

মডিউল-৫, সেশন-২ঃ শুধুমাত্র প্রেসক্রিপশনের মাধ্যমেই ক্রেতার নিকট বিক্রয়যোগ্য ওষুধসমূহ (Prescription Only Medicines)

মডিউল-৭

মডিউল-৭, সেশন-২ঃ এ্যান্টিবায়োটিকের অকার্যকর হওয়া যেভাবে ছড়িয়ে পড়ে

মডিউল-৮

মডিউল-৮, সেশন-২ঃ করোনা সংক্রমণকালীন নিরাপদ ওষুধ ডিসপেন্সিংয়ের ক্ষেত্রে সংক্রমণ প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা অনুসরণ

লেসন-৫.২ঃ এন্টি-মাইক্রোবিয়াল ওষুধ-সেফালোস্পোরিন

এন্টি-মাইক্রোবিয়াল ওষুধ-সেফালোস্পোরিন

সেফালোস্পোরিন

সেফালোস্পোরিন হচ্ছে ব্রড-স্পেকট্রাম, ব্যাকটেরিয়াঘাতী এন্টিবায়োটিক। এটা এন্টিমাইক্রোবিয়াল কার্যক্রমমূলক সাধারণ বৈশিষ্ট্যের কারণে বিভিন্ন প্রজন্ম’ (Generations)- তে শ্রেণীবদ্ধ।

প্রথম প্রজন্মের মধ্যে, সেফালোথিনের থেকে সেফাজোলিন এস. অরিয়াস ব্যাকটেরিয়ার হতে বিটাল্যাকটামেজ দ্বারা অধিকতর হাইড্রোলাইসিসে বেশী সক্ষম।

গ্রাম-নেগেটিভ ব্যাকটেরিয়া দ্বারা তৈরি বিটাল্যাকটামেজের প্রতি দ্বিতীয় প্রজন্ম, সেফোক্সিটিন ও সেফুরোক্সিম বেশি প্রতিরোধী এবং তৃতীয় প্রজন্মের ওষুধ, প্রথম প্রজন্মের ওষুধ থেকে বেশী প্রতিরোধী।

তৃতীয় প্রজন্মের ওষুধ ক্রোমোজোমালী এনকোডেড টাইপ-১ বিটাল্যাকটামেজ দ্বারা হাইড্রোলাইসিসে সক্ষম হয়।

চতুর্থ প্রজন্মের ওষুধ, যেমন – সেফিপিম হচ্ছে টাইপ-১ বিটাল্যাকটামেজের দুর্বল প্রভাবক এবং টাইপ-১ বিটাল্যাকটামেজ দ্বারা হাইড্রোলাইসিসে তৃতীয় প্রজন্মের থেকে কম সক্ষম।

নির্দেশনা

  • সেফ্রাডক্সিল ব্যবহৃত হয় মূত্রতন্ত্রের সংক্রমন, সামান্য পলিমাইক্রোবিয়াল সংক্রমন, যেমন – সেলুলাইটিস, সফট টিস্যু এবসেস, অটাইটিস মিডিয়া, সাইনোসাইটিসের জন্য;
  • সেফালেক্সিন ব্যবহৃত হয় রিকারেন্ট ইউটিআই-র প্রোফাইলেক্সিসের জন্য;
  • সেফ্রাডিন ব্যবহৃত হয় সার্জিক্যাল প্রোফাইলেক্সিসের জন্য;
  • সেফাক্লর ব্যবহৃত হয় সাইনোসাইটিস, অটাইটিস ও এইচ. ইনফ্লুয়েঞ্জি বা বি. ক্যাটারালিস তৈরি বিটাল্যাকটামেজ দ্বারা নিম্ন শ্বাসতন্ত্রের সংক্রমনের জন্য;
  • সেফোক্সিটিন ব্যবহৃত হয় কোলোরেকটাল সার্জারীতে ইনটেষ্টিনাল এনারোবসের বিরুদ্ধে প্রোফাইলেক্সিস, মিশ্র এনারোবিক সংক্রমন, যেমন – পেরিটোনাইটিস, ডাইভারকুলাইটিস, ফ্যাকালটেটিভ গ্রাম-নেগেটিভ ব্যাকটেরিয়া সংক্রমণ, যেমন-পেলভিক ইনফ্ল্যামেটরী ডিজিজ, ডায়াবেটিক, পায়ের সংক্রমনের জন্য;
  • সেফপ্রোজিল ব্যবহৃত হয় উর্দ্ধ শ্বাসতন্ত্রের সংক্রমনের জন্য, চামড়া ও সফট টিস্যু সংক্রমনের জন্য;
  • সেফুরোক্সিম ব্যবহৃত হয় সার্জিক্যাল প্রোফাইলেক্সিস, লাইম ডিজিজ, গনোরিয়া ও কমিউনিটি একুয়ার্ড নিউমোনিয়াতে বিশেষত: বিটাল্যাকটামেজ তৈরি এইচ. ইনফ্লুয়েঞ্জা বা বি. ক্যাটারালিস বিবেচনার বিষয়;
  • সেফডিনির ব্যবহৃত হয় গনোরিয়া, অটাইটিস মিডিয়া, ফ্যারেনজাইটিস, নিম্ন শ্বাসতন্ত্রের সংক্রমন, যেমন-ব্রঙ্কাইটিস ও ইউটিআই-র জন্য;
  • সেফিক্সিম ব্যবহৃত হয় সাইনোসাইটিস, অটাইটিস মিডিয়া, চামড়া ও সফট টিস্যু সংক্রমনের জন্য যার কারণ এন্টারোব্যাকটেরিয়াসিস ও বিটাল্যাকটামেজ তৈরি এইচ. ইনফ্লুয়েঞ্জা বা মোরাক্সেলা ক্যাটারালিস ও এন. গনোরিয়ায়;
  • সেফোট্যাক্সিম ব্যবহৃত হয় ৩টি-একত্রিত ওষুধের অংশ হিসাবে, ভ্যানকোমাইসিন ও এমপিসিলিনের সাথে, মেনিনজাইটিস (এইচ. ইনফ্লুয়েঞ্জি, পেনিসিলিন-সংবেদনশীল এস. নিউমোনি, এন. মেনিনজাইটিডিস ও গ্রাম-নেগেটিভ এনটেরিক ব্যাকটেরিয়া), গনোরিয়া, হেমোফিলাস এপিগøটাইটিসের জন্য;
  • সেফপোডোক্সিম ব্যবহৃত হয় উপরের শ্বাসতন্ত্রের সংক্রমন, বিশেষ করে যেগুলো রিকারেন্ট ও অন্য এন্টিবায়োটিকে প্রতিরোধী, নিম্ন শ্বাসতন্ত্রের সংক্রমন, যেমন-ব্রঙ্কাইটিস ও নিউমোনিয়া, এবং চামড়া ও সফট টিস্যু সংক্রমনের জন্য;
  • সেফটাজিমাইড ব্যবহৃত হয় সিউডোমোনাস মেনিনজাইটিসের অ্যামাইনোগøাইকোসাইড চিকিৎসা ও সার্জিক্যাল প্রোফাইলেক্সিসের জন্য;
  • সেফট্রিয়াক্সোন ব্যবহৃত হয় সার্জিক্যাল প্রোফাইলেক্সিসের জন্য;
  • সেফিপিম ব্যবহৃত হয় নজোকোমিয়াল সংক্রমনের পরীক্ষামূলক চিকিৎসার জন্য।

যেভাবে পাওয়া যায়

  • সলিড আকারে (ট্যাবলেট, ক্যাপসুল ও সাসপেনসনের পাউডার ইত্যাদি);
  • মাংসপেশীতে/শিরায় ব্যবহারের ইনজেকশন;

প্রয়োগের পথ

  • মুখে;
  • শিরায়;
  • মাংসপেশী;

সাধারণ পার্শ্ব-প্রতিক্রিয়া

  • অত্যাধিক সংবেদনশীলতা প্রতিক্রিয়া, তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়া যেমন – এনাফাইলেক্সিস, ব্রঙ্কোস্পাজম ও আরটিকারিয়া দেখা যায়;
  • সেফালোস্পোরিন সম্ভাব্য নেফ্রোটক্সিক ওষুধ;
  • সেফালোস্পোরিনে পেটের সমস্যা বা ডায়রিয়া হতে পারে, বেশী হয় সেফোপেরাজোন ও সেফপিরামাইড-এর ক্ষেত্রে; কারণ, তারা পিত্তথলি (Gallbladder) থেকে বেশী নি:সরণ হয়;
  • প্রচন্ড রক্তক্ষরণ, যা হাইপোপ্রথম্বিনেমিয়া, থ্রম্বোসাইটোপেনিয়া এবং প্লাটিলেট ডিসফাংশানের সাথে যুক্ত – সেগুলো অনেকগুলো সেফালোস্পোরিনসহ বিটাল্যাকটাম এন্টিবায়োটিকের ক্ষেত্রে রিপোর্ট করা হয়েছে;

ব্যবহারে সতর্কতা

যেসব রোগীর সাম্প্রতিক পেনিসিলিনে মারাত্মক, তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়া হয়েছে, রেনাল ইমপেয়ারমেন্ট, গর্ভাবস্থা ও বুকের দুধ খাওয়ানো ইত্যাদি ক্ষেত্রে সেফালোস্পোরিন দেয়ার আগে অতি সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে।

সংরক্ষণ

এই ধরনের ওষুধ ফর্ম/ডোজেস ফরম ও ওষুধের বাক্সে প্রদত্ত লিফলেট/বিবরণীপত্রে নির্দেশিত নিয়মে সংরক্ষণ করা উচিত।