মডিউল-১

মডিউল-১, সেশন-২ঃ ফার্মাসিস্ট কোড অব ইথিকস এবং মডেল মেডিসিন শপে গ্রেড ‘সি’ ফার্মাসিস্টদের (ফার্মেসি টেকনিশিয়ান) দায়িত্ব ও কর্তব্য

মডিউল-২

মডিউল-৪

মডিউল-৪, সেশন-৩ঃ ওষুধ প্রয়োগের পথ

মডিউল-৫

মডিউল-৫, সেশন-২ঃ শুধুমাত্র প্রেসক্রিপশনের মাধ্যমেই ক্রেতার নিকট বিক্রয়যোগ্য ওষুধসমূহ (Prescription Only Medicines)

মডিউল-৭

মডিউল-৭, সেশন-২ঃ এ্যান্টিবায়োটিকের অকার্যকর হওয়া যেভাবে ছড়িয়ে পড়ে

মডিউল-৮

মডিউল-৮, সেশন-২ঃ করোনা সংক্রমণকালীন নিরাপদ ওষুধ ডিসপেন্সিংয়ের ক্ষেত্রে সংক্রমণ প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা অনুসরণ

লেসন-২ঃ রক্তস্বল্পতা (অ্যানেমিয়া) ও অন্যান্য রক্ত জনিত রোগ সমূহে ব্যবহৃত ওষুধসমূহ

রক্তস্বল্পতা (অ্যানেমিয়া) ও অন্যান্য রক্ত জনিত রোগ সমূহে ব্যবহৃত ওষুধসমূহ

রক্তস্বল্পতা (অ্যানেমিয়া) ও অন্যান্য রক্ত জনিত রোগ সমূহে ব্যবহৃত ওষুধসমূহ

এধরনের ওষুধগুলো যেকোন ধরনের রক্তজনিত/ রক্ত সংক্রান্ত রোগ নিবারণে কিংবা রোগ থেকে আরোগ্য লাভে ব্যবহৃত হয়ে থাকে যেমন: আয়রন-এর অভাবজনিত রক্তস্বল্পতা, ফলিকএসিড-এর অভাবজনিত রক্তস্বল্পতা, মেগালোব্লাস্টিক অ্যানেমিয়া, হেমোলাইটিক অ্যানেমিয়া ইত্যাদি।

এধরনের কতকগুলো ওষুধের উদাহরণ হলো – ফেরাস-সালফেট, ফেরাস-ফিউমারেট, ফলিক-এসিড, আয়রন-ডেক্সট্রান, সায়ানোকোবালামিন ইত্যাদি।

নির্দেশনা

নিম্নের রোগসমূহের চিকিৎসা ও প্রতিষেধক হিসেবে ব্যবহৃত হয়:

  • আয়রন-এর অভাব জনিত রক্তস্বল্পতা (এনিমিয়া);
  • ফলিকএসিড-এর অভাবজনিত রক্তস্বল্পতা (এনিমিয়া);
  • মেগালোব্লাস্টিক অ্যানেমিয়া;
  • হেমোলাইটিক অ্যানেমিয়া;

যেভাবে বাজারে পাওয়া যায়

  • সলিড আকারে (ট্যাবলেট, ক্যাপসুল, পিএফএস) মুখে ব্যবহারের জন্য;
  • তরল আকারে (সিরাপ, সাসপেনশন) মুখে ব্যবহারের জন্য;
  • মুখে ব্যবহার ছাড়া (ইনকেজশন) শিরা পথে ব্যবহারের জন্য।

প্রয়োগের পথ

  • মুখে;
  • শিরা পথে ইনজেকশন-এর মাধ্যমে।

বিরুদ্ধ ব্যবহার (Contraindications)

  • গর্ভাবস্থায় ও স্তন্যদানকালীন সময়ে;
  • যেসকল রোগীর হাঁপানী (Asthma রোগ-এর ইতিহাস আছে;
  • বুকেব্যথা (Angina);
  • এ্যারিথমিয়া (Arrhythmia);
  • একিউট রেনাল ফেইলিওর;
  • প্রকট যকৃত/লিভার সংক্রান্ত রোগ (Severe Liver Disease);

সতর্কতা

নিম্নলিখিত ক্ষেত্রে সতর্কতার সাথে ব্যবহার করতে হবে:

  • হেমোক্রোমেটোসিস (Haemochromatosis);
  • থ্যালাসেমিয়া (Thalassemia);
  • আয়রনের প্রতি অধিক সংবেদনশীলতা;
  • পেপটিক আলসার-এর ইতিহাস থাকলে;
  • গর্ভাবস্থায়;

পার্শ্ব-প্রতিক্রিয়া

  • বমি বমি ভাব ও বমি হওয়া;
  • পেট ব্যথা ও অস্বস্তি ভাব;
  • ডায়রিয়া;
  • কোষ্ঠকাঠিন্য;
  • শ্বাসকষ্ট ও সংজ্ঞাহীনতা;
  • পায়খানার কালচে রং;
  • অতি সংবেদনশীল প্রতিক্রিয়া;

সংরক্ষণ

এ ধরনের ওষুধ, ধরন অনুসারে বাক্সের গায়ে অথবা ওষুধের বাক্সে প্রদত্ত লিফলেট/বিবরণীপত্রে নির্দেশিত নিয়মে সংরক্ষণ করতে হবে।