মডিউল-১

মডিউল-১, সেশন-২ঃ ফার্মাসিস্ট কোড অব ইথিকস এবং মডেল মেডিসিন শপে গ্রেড ‘সি’ ফার্মাসিস্টদের (ফার্মেসি টেকনিশিয়ান) দায়িত্ব ও কর্তব্য

মডিউল-২

মডিউল-৪

মডিউল-৪, সেশন-৩ঃ ওষুধ প্রয়োগের পথ

মডিউল-৫

মডিউল-৫, সেশন-২ঃ শুধুমাত্র প্রেসক্রিপশনের মাধ্যমেই ক্রেতার নিকট বিক্রয়যোগ্য ওষুধসমূহ (Prescription Only Medicines)

মডিউল-৭

মডিউল-৭, সেশন-২ঃ এ্যান্টিবায়োটিকের অকার্যকর হওয়া যেভাবে ছড়িয়ে পড়ে

মডিউল-৮

মডিউল-৮, সেশন-২ঃ করোনা সংক্রমণকালীন নিরাপদ ওষুধ ডিসপেন্সিংয়ের ক্ষেত্রে সংক্রমণ প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা অনুসরণ

লেসন-২ঃ বিপজ্জনক ওষুধ আইন ১৯৩০, ১৯৫১; ওষুধ আইন ১৯৪০, ১৯৭৪; ওষুধ বিধিমালা ১৯৪৫;  ওষুধ আইন ১৯৪০-এর অধীনে; দ্যা বেঙ্গল ড্রাগ রুলস ১৯৪৬; বিষ আইন ১৯১৯, ১৯৫২ এবং বিশেষ ক্ষমতা আইন ১৯৭৪

বিপজ্জনক ওষুধ আইন ১৯৩০, ১৯৫১; ওষুধ আইন ১৯৪০, ১৯৭৪; ওষুধ বিধিমালা ১৯৪৫;  ওষুধ আইন ১৯৪০-এর অধীনে; দ্যা বেঙ্গল ড্রাগ রুলস ১৯৪৬; বিষ আইন ১৯১৯, ১৯৫২ এবং বিশেষ ক্ষমতা আইন ১৯৭৪

বিপজ্জনক ওষুধ আইন (The Dangerous Drug Act), ১৯৩০, ১৯৫১

বিপজ্জনক ওষুধ আইন, ১৯৩০ এবং ১৯৫১ বিপজ্জনক ওষুধ বিষয়ক বিভিন্ন কার্যক্রম নিয়ন্ত্রণ করে থাকে।

ওষুধ আইন (The Drugs Act), ১৯৪০, ১৯৭৪

ওষুধ আইন, ১৯৪০ দেশের ওষুধ আমদানি, রপ্তানী, উৎপাদন, বন্টন ও বিক্রয় নিয়ন্ত্রণ করে। এটি ১৯৭৪ সালে বাংলাদেশের ওষুধ আইন হিসেবে গৃহীত হয়।

দ্যা বেঙ্গল ড্রাগ রুলস (The Bengal Drugs Rules), ১৯৪৬

দ্যা বেঙ্গল ড্রাগ রুলস, ১৯৪৬ ওষুধ বিক্রয় ও উৎপাদনের জন্য লাইসেন্সপ্রাপ্ত সরকারি অ্যানালিষ্ট ও ইন্সপেক্টরের দায়িত্ব ও কর্তব্য বর্নণা করে। এই আইনের পার্ট-৩ এ ওষুধ বিক্রয় সম্পর্কে বর্ণনা করা হয়েছে। দ্যা বেঙ্গল ড্রাগ রুলসে লাইসেন্স করার প্রক্রিয়া, লাইসেন্স করার শর্ত, নবায়ণ করার প্রক্রিয়া, বৈধ লাইসেন্সের সময়সীমা ইত্যাদি বলা হয়েছে।

বিষ আইন (The Poison Act), ১৯১৯, ১৯৫২

বিষ আইন, ১৯৫২ দেশে বিষ (Poison) জাতীয় পণ্য/দ্রব্যাদি আমদানি, মজুদ ও বিক্রয় নিয়ন্ত্রণ করে। যে সকল দ্রব্যাদি সামান্য পরিমাণে হলেও খাওয়ার পর মৃত্যু ঘটে বা প্রাণীকে মারাত্মকভাবে আক্রান্ত করে এবং যে সকল দ্রব্যাদিকে নির্দিষ্টভাবে প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে বিষ (Poison) বলা হয়েছে সেই সকল দ্রব্যাদির আমদানি, মজুদ ও বিক্রয় এই আইন দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হয়।

বিশেষ ক্ষমতা আইন (The Special Power Act), ১৯৭৪

বিশেষ ক্ষমতা আইন, ১৯৭৪-এ খাদ্য, পানীয় ও ওষুধে ভেজাল দেয়াকে শাস্তিযোগ্য অপরাধ হিসাবে উল্লেখ করা হয়েছে এবং ভেজাল খাদ্য, পানীয় ও ওষুধ বিক্রির শাস্তি উল্লেখ করা হয়েছে।