মডিউল-১

মডিউল-১, সেশন-২ঃ ফার্মাসিস্ট কোড অব ইথিকস এবং মডেল মেডিসিন শপে গ্রেড ‘সি’ ফার্মাসিস্টদের (ফার্মেসি টেকনিশিয়ান) দায়িত্ব ও কর্তব্য

মডিউল-২

মডিউল-৪

মডিউল-৪, সেশন-৩ঃ ওষুধ প্রয়োগের পথ

মডিউল-৫

মডিউল-৫, সেশন-২ঃ শুধুমাত্র প্রেসক্রিপশনের মাধ্যমেই ক্রেতার নিকট বিক্রয়যোগ্য ওষুধসমূহ (Prescription Only Medicines)

মডিউল-৭

মডিউল-৭, সেশন-২ঃ এ্যান্টিবায়োটিকের অকার্যকর হওয়া যেভাবে ছড়িয়ে পড়ে

মডিউল-৮

মডিউল-৮, সেশন-২ঃ করোনা সংক্রমণকালীন নিরাপদ ওষুধ ডিসপেন্সিংয়ের ক্ষেত্রে সংক্রমণ প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা অনুসরণ

লেসন-১ঃ ‘মেডিকেশন এরর’ বা ওষুধ গ্রহণ সম্পর্কিত ভুলের প্রকারভেদ

‘মেডিকেশন এরর’ বা ওষুধ গ্রহণ সম্পর্কিত ভুলের প্রকারভেদ

‘মেডিকেশন এরর’-কে সাধারণত কয়েকটি ভাগে ভাগ করা যেতে পারে যেমন-

ক) ব্যবস্থাপত্রজনিত ভুল (Prescribing Error)

খ) ওষুধ ডিসপেনন্সিং জনিত ভুল (Dispensing Error)

গ) ভুল মোড়ক (Packaging Error)

ঘ) ওষুধের লেবেলজনিত ভুল (Labeling Error)

ঙ) ওষুধের প্রয়োগজনিত ভুল (Administering Error)

ক) ব্যবস্থাপত্রজনিত ভুল (Prescribing Error)

ব্যবস্থাপত্রজনিত ভুলের কারণে রোগীর মারাত্মক ক্ষতি হতে পারে এবং তাতে জীবন ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে উঠতে পারে। চিকিৎসক যখন রোগীকে ব্যবস্থাপত্র দেন সেসময় এধরনের ভুল হতে পারে। যেমন, সঠিক রোগে নির্দেশিত ওষুধ না দেয়া, ব্যবস্থাপত্রে বিরূদ্ধ-ব্যবহৃত (Contraindicated) ওষুধ সেবনের নির্দেশ, ওষুধের মাত্রা, পরিমাণ, ধরন (Dosage Form), দশমিকের ব্যবহারজনিত ভুল (.৫ মিলিগ্রাম পড়তে ৫ মিলিগ্রাম পড়া, ৫.০ মিলিগ্রাম পড়তে ৫০ মিলিগ্রাম পড়া। এধরনের ভুল এড়াতে .৫ মিলিগ্রাম না লিখে ০.৫ মিলিগ্রাম লেখা ও ৫.০ মিলিগ্রাম না লিখে শুধুমাত্র ৫ মিলিগ্রাম লেখা উচিত) ইত্যাদি থেকে ব্যবস্থাপত্রজনিত ভুল হতে পারে। এধরনের ভুল শিশু ও বৃদ্ধদের জন্য খুব মারাত্মক হতে পারে।

খ) ওষুধ ডিসপেন্সিং জনিত ভুল (Dispensing Error)

এধরনের ভুল সাধারণত ফার্মাসিস্টের দিক থেকে হয়ে থাকে। ব্যবস্থাপত্র অনুযায়ী রোগীকে ওষুধ ডিসপেন্স করার সময় এধরনের ভুল হয়। ওষুধ ডিসপেন্স জনিত ভুলের মূল কারণগুলো হলো- ওষুধের বানান একরকম দেখতে (Spell-alike) হলে, ওষুধের নামের উচ্চারণ একরকম (Sound-alike) হলে, ওষুধের বাহ্যিক আকার ও আকৃতি একরকম (Look-alike) হলে, চিকিৎসকের হাতের লেখা পড়তে ভুল করলে, রোগীকে ভুল ধরনের (Dosage form) ওষুধ ডিসপেন্স করলে, ওষুধ ডিসপেন্সের মাত্রা ও পরিমাণ ভুল করলে, মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ ডিসপেন্স করলে, একজন রোগীর ওষুধ অন্যজনকে দিয়ে দিলে। ওষুধ ডিসপেন্স জনিত যেকোন ভুল রোগীর জন্য খুব মারাত্মক হয়।

তবে ওষুধের বানান ও উচ্চারণ একরকম (Spell-alike) হওয়ার কারণে যেসব ভুল ফার্মাসিস্টদের হয়ে থাকে সেগুলোর উদাহরণ হলো- Tab. Zimax (Azithromycin) ৫০০ মিগ্রা এবং Tab. Zymox (Levodopa 110 mg and Carbidopa 275 mg); Tab. Zybex (Bupropion) ১৫০ মিগ্রা এবং Tab. Zymet (Pancreatin) ৩২৫ মিগ্রা; Tab. Cortan (Prednisolone) ৫, ১০, এবং ২০ মিগ্রা এবং Tab. Cotrim (Trimethoprime 80 mg and Sulphamethoxazole 400 mg) এবং Tab. Coartem (Artemether 20 mg and Lumefantrine 120 mg); Tab. Metro (Metronidazole) ৫০০ মিগ্রা এবং Tab. Metfo (Metformin) ৫০০ মিগ্রা।

গ) ভুল মোড়ক (Packaging Error)

রোগীকে ওষুধ ডিসপেন্স করার সময় খোলা ওষুধ পাত্র থেকে বের করে আবার একটি ছোট মোড়কে ঢুকিয়ে তার গায়ে প্রিন্টেড বা হাতে লেখা লেবেল এঁটে দেয়া হয়। এই লেবেল আঁটার সময় এক ওষুধের লেবেল অন্য ওষুধের মোড়কে পড়ে ভুলের সৃষ্টি হয়। এধরনের কাজ করার সময় ফার্মাসিস্টকে খুব সতর্ক থাকতে হবে।

ঘ) ওষুধের লেবেলজনিত ভুল (Labeling Error)

চিকিৎসকের ব্যবস্থাপত্র অনুযায়ী সেবনের নির্দেশাবলীসহ প্রিন্টেড বা হাতে লেখা লেবেল মোড়কের গায়ে এঁটে দেয়া হয়। এই নির্দেশাবলী ভুল থাকলে রোগীর সঠিক ওষুধীয় সেবা (Pharmaceutical care) পেতে ব্যাঘাত ঘটে। ওষুধ ডিসপেন্সিং এর সময় ফার্মাসিস্টের এধরনের ভুল হয়ে থাকে।

ঙ) ওষুধের প্রয়োগজনিত ভুল (Administering Error)

এধরনের ভুল সাধারণত সেবক/সেবিকা (Nurse) দ্বারা হয়ে থাকে কিংবা রোগীরা নিজেরাও করে থাকেন। নার্স রোগীর প্রোফাইল দেখে যখন Medication chart বা মেডিকেশন কেবিনেট থেকে রোগীকে প্রয়োগের জন্য ওষুধ নেন, সে সময় কেবিনেটের মধ্যে একই রকম বাহ্যিক আকার, আকৃতি ও রঙের (Look-alike) ওষুধ থাকলে এধরনের ভুল হয়ে থাকে। আমাদের হাসপাতাল ও ক্লিনিকগুলোতে এধরনের ভুল হওয়ার সম্ভাবনা খুব বেশি। বাড়িতে একাধিক রোগী থাকলে ওষুধ গ্রহণের সময় Look-alike ওষুধ থাকার ফলে একজন অন্যের ওষুধ সেবনের উদাহরণ রয়েছে। এধরনের ওষুধের উদাহরণ আগেই উল্লেখ করা হয়েছে।