মডিউল-১

মডিউল-১, সেশন-২ঃ ফার্মাসিস্ট কোড অব ইথিকস এবং মডেল মেডিসিন শপে গ্রেড ‘সি’ ফার্মাসিস্টদের (ফার্মেসি টেকনিশিয়ান) দায়িত্ব ও কর্তব্য

মডিউল-২

মডিউল-৪

মডিউল-৪, সেশন-৩ঃ ওষুধ প্রয়োগের পথ

মডিউল-৫

মডিউল-৫, সেশন-২ঃ শুধুমাত্র প্রেসক্রিপশনের মাধ্যমেই ক্রেতার নিকট বিক্রয়যোগ্য ওষুধসমূহ (Prescription Only Medicines)

মডিউল-৭

মডিউল-৭, সেশন-২ঃ এ্যান্টিবায়োটিকের অকার্যকর হওয়া যেভাবে ছড়িয়ে পড়ে

মডিউল-৮

মডিউল-৮, সেশন-২ঃ করোনা সংক্রমণকালীন নিরাপদ ওষুধ ডিসপেন্সিংয়ের ক্ষেত্রে সংক্রমণ প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা অনুসরণ

ধাপ-৪ঃ ওষুধ গ্রহণ

ওষুধ গ্রহণ

ক্রয়কৃত ওষুধ গ্রহণ করা/বুঝে নেয়াঃ

সাধারণতঃ ওষুধ সরবরাহকারী/ প্রস্তুতকারী কোম্পানি ওষুধসমূহ দোকানে পৌঁছে দেন। তবে কখনো কখনো মডেল মেডিসন শপের মালিক বা তার কর্মচারিগণকে কোম্পানির বিক্রয়কেন্দ্র থেকেও মালামাল সংগ্রহ করতে হয়। উভয় ক্ষেত্রেই আদেশ তালিকার সাথে মিলিয়ে সরবরাহকৃত মালামালের গুণগত মান, পরিমাণ ইত্যাদি সঠিকভাবে বুঝে নেয়া উচিত। এর জন্য নিম্নলিখিত চেকলিস্ট ব্যবহার করা যেতে পারে।

চেকলিস্ট

মন্তব্যসমূহ

সরবরাহকৃত পণ্যের পরিমাণ আদেশপত্রের সাথে মিলিয়ে নিন।

  • আদেশপত্রে যে পরিমাণ ওষুধ উল্লেখ করা ছিল তার সরবরাহের রশিদের সাথে মিলিয়ে নিন।
  • অনেক ক্ষেত্রে সরবরাহকারী আপনার চাহিদার অতিরিক্ত পণ্য গছিয়ে দেয়ার চেষ্টা করে। এ ধরনের কাজ সাধারণত যে সকল পণ্যের চাহিদা কম সে ক্ষেত্রেই বেশি ঘটে।
  • আপনি শুধু সেগুলোই গ্রহণ করুন যেগুলোর জন্য আপনার চাহিদা এবং বাজেট রয়েছে।
  • অস্বাভাবিক কম মূল্য বা অতিরিক্ত কমিশনের লোভে প্রয়োজনের অতিরিক্ত পণ্য মজুদ করবেন না।

ওষুধের মেয়াদোত্তীর্ণের তারিখ লক্ষ্য করুন।

  • সরবরাহকৃত প্রতিটি পণ্যের মেয়াদোত্তীর্ণের তারিখ ভালোভাবে খেয়াল করুন।
  • ওষুধের গায়ে এবং বাক্সের গায়ে লিখিত মেয়াদ মিলিয়ে দেখে উভয় তারিখ একই তা নিশ্চিত হোন।
  • যে সকল পণ্যের মেয়াদ শীঘ্রই উত্তীর্ণ হয়ে যাবে তার মূল্য কম হলেও তা গ্রহণ করবেন না।
  • যে সকল ওষুধের মেয়াদোত্তীর্ণের তারিখ দেয়া নেই সেগুলো গ্রহণ করবেন না। কারণ, সেগুলো নকল হওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

সরবরাহকৃত ওষুধের প্যাকেজিং গুলো ভালোভাবে লক্ষ্য করুন। 

  • প্যাকেটে বা বাক্সে কোন বোতল ভাঙ্গা আছে কিনা তা চিহ্নিত করতে সহায়তা করবে।
  • এমন কোন ওষুধ গ্রহণ করবেন না, যেগুলোর লেবেল বা প্যাকেটের কোথাও দাগ লেগে আছে।

ওষুধের ট্রেড নাম মিলিয়ে নিন।

  • সরবরাহকৃত ওষুধগুলোর নাম এবং আপনার আদেশপত্রের নামগুলো মিলিয়ে নিন।
  • কোন কোন ক্রেতা কোন কোন বিশেষ নামের ওষুধ পছন্দ করেন, সেক্ষেত্রে যতক্ষণ না আপনার স্টক ফুরিয়ে যাচ্ছে, ততক্ষণ আপনার রোগী বা গ্রাহকের পছন্দকে গুরুত্ব দিন ।
  • অনেক সরবরাহকারী  প্রতিষ্ঠান অনেক সময়  ওষুধের  নাম এবং  ট্রেডের পরিবর্তন জানানোর পদক্ষেপ নেয় না, তাই আপনি সতর্কতার সাথে মিলিয়ে নিন।

ওষুধে স্ট্রেন্থ (Strength) ও পরিমাণ মিলিয়ে নিন।

  • আপনি যে স্ট্রেন্থসম্পন্ন ওষুধের আদেশ জানিয়েছিলেন সে অনুযায়ী সরবরাহ করা হয়েছে কিনা তা মিলিয়ে নিন।
  • এটির মাধ্যমে ভুল স্ট্রেন্থ এর ওষুধ নেয়া থেকে বাঁচা যাবে। (যেমন বড়দের ওষুধের স্থলে বাচ্চাদের ওষুধ সরবরাহ করা ইত্যাদি) ।

ওষুধের স্থানান্তর

  • প্রতিক‚ল পরিবেশ যেমন- সরাসরি সূর্যালোক, উচ্চ তাপমাত্রা, পানি অথবা ধুলাবালিতে ওষুধ উন্মুক্ত হলে তা ক্ষতিগ্রস্থ হয়;
  • স্থানান্তরের আগে এবং পরে সকল ওষুধই সঠিকভাবে প্যাকেট করতে হবে যাতে এ ধরনের পরিস্থিতিতে উন্মুক্ত হয়ে ওষুধের মান ক্ষতিগ্রস্থ না হয়।

ওষুধের মূল্য নির্ধারণ

ওষুধের মূল্য যেহেতু ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তর কর্তৃক পূর্বেই নির্ধারণ করা থাকে তাই এক্ষেত্রে মডেল মেডিসিন শপের করণীয় হল সঠিক মূল্যে বিক্রয় করা।

টীকাঃ ওষুধে বা তার প্যাকেটের গায়ে সর্বোচ্চ খুচরামূল্য নির্দেশ/উল্লেখ করুন এবং আদেশ তালিকাতেও লিপিবদ্ধ করুন। ওষুধের মূল্য মুখস্থ রাখার চেষ্টা থেকে বিরত থাকুন এবং ক্রেতাকেও তা জিজ্ঞাসা করার সুযোগ দিবেন না। এতে মূল্য বলার ক্ষেত্রে ভুল হতে পারে এবং আপনি গ্রাহকের আস্থা হারাতে পারেন।